বুধবার, ৪ অগাস্ট ২০২১

ভারতে আলজাজিরার সাংবাদিক রাকিব হামিদ নাইককে হত্যার হুমকি

ঢাকা

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরায় প্রতিবেদন প্রকাশের জেরে ভারতে রাকিব হামিদ নাইক নামের এক মুসলিম সাংবাদিককে বিভিন্ন হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠী ও ব্যক্তি প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

আলজাজিরা মিডিয়া নেটওয়ার্ক অবশ্য বলিষ্ঠভাবে রাকিব হামিদ নাইক নামে ওই সাংবাদিকের পাশে দাঁড়িয়েছে এবং তার সমর্থনে রোববার রাতে একটি বিবৃতিও দিয়েছে।

এর আগে গত এপ্রিল মাসে আলজাজিরায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে রাকিব হামিদ নাইক লিখেছিলেন— মার্কিন ফেডারেল সরকারের কোভিড ত্রাণ সে দেশের এমন কতগুলো হিন্দুত্ববাদী সংগঠন পেয়েছে, যারা ভারতের আরএসএসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত।

বিজ্ঞাপন

হিন্দু আমেরিকান ফাউন্ডেশনসহ আরও চারটি আমেরিকাভিত্তিক সংস্থা এভাবে প্রায় আট লাখ ৩৩ হাজার মার্কিন ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় সোয়া ছয় কোটি রুপি) পেয়েছে বলে ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল।

এর পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই সাংবাদিক বিভিন্ন ধরনের হুমকি পেতে শুরু করেন।

হুমকির ব্যাপারে রাকিব হামিদ নাইক আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছেও রিপোর্ট করেছেন

রাকিব হামিদ নাইক এ মুহূর্তে আমেরিকায় আছেন, সে দেশের বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছেও তিনি রিপোর্ট করেছেন যে তাকে নিয়মিতভাবে হত্যা করার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

নিজের টুইটার হ্যান্ডল থেকেও রাকিব হামিদ নাইক এ রকম বেশ কয়েকটি আক্রমণাত্মক টুইটের স্ক্রিনশট পোস্ট করেছেন— যেখানে তাকে ‘জিহাদি’, ‘সন্ত্রাসবাদী’ ও ‘হিন্দুবিদ্বেষী’ বলে গালাগাল করা হয়েছে।

যেমন— ‘শ্রীরামের কাঠবিড়ালি’ অ্যাকাউন্ট থেকে একজন লিখেছেন, রাকিব নাইক ও তার পরিবারের সবার ভিসা স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করা হোক।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কার্যালয়কে ট্যাগ করে তিনি প্রস্তাব দিয়েছেন, ‘ভারতে রাকিব নাইকের পরিবারে কয়জন সন্ত্রাসবাদী আছে খুঁজে বের করে সবার চিকিৎসা করা হোক!

‘ম্যায় ভি সুশান্ত’ নামের আড়ালে আরও একজন লিখেছেন— ‘এই রাকিব একজন ভারতীয় মুসলিম, যে হিন্দু করদাতাদের পয়সায়-চলা মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছে। এখন তার লক্ষ্য হলো— ভারতে ইন্তিফাদা আর খিলাফতের জমি প্রস্তুত করা!’

বিজ্ঞাপন

আরও এক ব্যক্তি ওই সাংবাদিককে ‘জিহাদি মোমিন’ বলে বর্ণনা করে মন্তব্য করেছেন, ‘সে হিন্দু সংগঠনগুলোকে আঘাত করতে চেয়েছে— এই কাশ্মীরি মৌলবাদীকে হিন্দুরা পাল্টা আক্রমণ করলে তাতে দোষের কিছু নেই!’

হিন্দু আমেরিকান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী অধিকর্তা সুহাগ এ শুক্লাও তার ভেরিফায়েড সোশ্যাল মিডিয়া পেজ থেকে রাকিব নাইকের প্রতিবেদনটিকে সরাসরি আক্রমণ করেছেন।

আলজাজিরার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, রুগ্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে মহামারিতে কর্মীদের চাকরিতে বহাল রাখতে পারে, সেই জন্য নির্দিষ্ট মার্কিন ত্রাণ পাঁচটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের হাতে পৌঁছেছে।

হিন্দু আমেরিকান ফাউন্ডেশন ছাড়াও ওখানে উল্লিখিত বাকি চারটি সংগঠন ছিল বিশ্ব হিন্দু পরিষদ আমেরিকা, একল বিদ্যালয় ফাউন্ডেশন অব ইউএসএ, ইনফিনিটি ফাউন্ডেশন ও সেবা ইন্টারন্যাশনাল।

বিজ্ঞাপন

থেকে আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন